1. admin@muhurto.tv : muhurtotv :
  2. info@netpeon.org : Ali Siddiki : Ali Siddiki
  3. smbabu.mcj@outlook.com : S M Babu : S M Babu
বুধবার, ১০ অগাস্ট ২০২২, ১১:৫৬ পূর্বাহ্ন

মাদারীপুরে ছাত্রীকে লাঞ্ছিত করার প্রতিবাদে মানববন্ধন

ইমাদাদুল হক মিলন, সংবাদ মুহূর্ত, মাদারীপুর।
  • তথ্য হালনাগাদের সময়ঃ রবিবার, ৫ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ১৫২ প্রদর্শিত সময়ঃ

মাদারীপুরে এক কলেজ ছাত্রীকে লাঞ্ছিত করার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি দেয়া হয়েছে। রোববার সকালে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের আয়োজনে মানববন্ধন করে। পরে বিচারের দাবিতে জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি দেন তারা।

এসময় বক্তব্য রাখেন নকশি কাথার সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক আয়শা সিদ্দিকা আকাশী, উপদেষ্টা এসএম আরাফাত হাসান, দুরন্ত মাদারীপুরের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রাকিব হাসান বকুল, বিডি ক্লিন মাদারীপুরের জেলা সমন্বয়কারী রাহাত হোসেন সোহান, স্বপ্নের সবুজ বাংলাদেশের সাধারণ সম্পাদক ইমরান মুন্সি, বন্ধনের সভাপতি জিল্লুর রহমান সম্রাট তালুকদার, কেএম জুবায়ের জাহিদ প্রমুখ।

ভুক্তভোগী কলেজ ছাত্রী ও তার পরিবার জানিয়েছে, শনিবার দুপুরে কলেজ ছাত্রী মাদারীপুরে সরকারি গণগ্রন্থাগারে তিন বান্ধবী মিলে বই পড়তে যায়। পরে ওই ছাত্রী প্রাইভেট শিক্ষকের কাছে পড়তে রওনা হলে গণগ্রন্থাগারের লাইব্রেরিয়ান বেলায়েত হোসেন তাকে ডেকে নিয়ে বই চুরির অভিযোগ দেন। এক পর্যায়ে অকাট্য ভাষায় গালি দেন এবং তাকে চড় থাপ্পড় মারেন। এই অপমান সইতে না পেরে ওই ছাত্রী আত্মহত্যার চেষ্টা করেন।

কলেজ ছাত্রীর মা বলেন, আমার মেয়ের শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেছেন লাইব্রেরিয়ান বেলায়েত হোসেন। আমার মেয়ে সেই অপমান সইতে না পেরে আত্মহত্যার চেষ্টাও করেছে। আমি এই ঘটনার বিচার চাই।

ভুক্তভোগী ছাত্রী বলেন, আমি বই চুরি করিনি। যদি আমি কোন অন্যায় করে থাকি তাহলে আমাকে আইনের হাতে তুলে দিতেন। কিন্তু তিনি আমাকে চড়থাপ্পড় মেরেছেন। তা কিছুতেই মানতে পারছিনা। আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

স্বেচ্ছাসেবক কেএম জুবায়ের হোসেন জাহিদ বলেন, সে শুধু কলেজ ছাত্রী না। সে একজন স্বেচ্ছাসেবক। তার শরীরে হাত তোলা কোনভাবে মেনে নেয়া সম্ভব না।

বিডি ক্লিনের মাদারীপুর জেলা সমন্বয়কারী রাহাত হোসেন সোহান বলেন, ‘উন্নত মানসিকতার মানুষগুলোই বই পড়তে লাইব্রেরিতে যান। সেখানে লাইব্রেরিয়ানের মানসিকতা এমন জঘন্য হয় কীভাবে। আমরা তার বিচার চাই।’

স্বপ্নের সবুজ বাংলাদেশের সাধারণ সম্পাদক ইমরান মুন্সি বলেন, নির্যাতিত ওই ছাত্রী আমাদের সংগঠনের সদস্য। সে সব সময় অসহায় মানুষদের পাশে থেকে নানা সহযোগিতা করে। সেই স্বেচ্ছাসেবককে এভাবে লাঞ্ছিত করায় আমরা মর্মাহত। আমরা এর বিচার চাই।

নকশি কাথার উপদেষ্টা এসএম আরাফাত হাসান বলেন, লাইব্রেরিয়ান বেলায়েত হোসেন কলেজ ছাত্রীর শরীরে হাত তুলেছেন। এটা কোনভাবেই মানা সম্ভব না। আমরা এর বিচার চাই। বিচারের দাবিতে প্রয়োজনে আরও বড় আন্দোলন করা হবে।

নকশি কাথার সাধারণ সম্পাদক আয়শা সিদ্দিকা আকাশী বলেন, একজন কলেজ ছাত্রীর উপর মানসিক ও শারীরিক নির্যাতনকারী বেলায়েত হোসেনের বিচার দাবি করছি। যদি সঠিক বিচার না হয় তাহলে আমরা বৃহত্তম আন্দোলন করব। যাতে করে এমন ঘটনা আর না ঘটে।

অভিযুক্ত লাইব্রেরিয়ান বেলায়েত হোসেনের কাছে এই ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আসলে ভুল বোঝাবুঝির কারণে এমন ঘটনা ঘটেছে। এজন্য আমি ক্ষমা চাচ্ছি।

এ ব্যাপারে মাদারীপুর মহিলা অধিদপ্তরের ভারপ্রাপ্ত উপ-পরিচালক মাহমুদা আক্তার কণা বলেন, ঘটনাটি খুবই জঘন্যতম। কোনভাবেই একজন লাইব্রেরিয়ান একজন কলেজছাত্রীর শরীরে হাত তুলতে পারেনা। অবশ্যই অপরাধীর বিচার হওয়া উচিত।

মাদারীপুরের জেলা প্রশাসক ড. রহিমা খাতুন বলেন, এই ঘটনার ব্যাপারে তদন্ত কমিটি করা হবে। আর ঘটনার সত্যতা পেলে অবশ্যই অপরাধীকে আইনের মাধ্যমে বিচার করা হবে।

খবরটি আপনার স্যোশাল টাইমলাইনে শেয়ার করুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই জাতীয় আরও অন্যান্য খবর
কপিরাইট © ২০২১ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত মুহূর্ত কমিউনিকেশনস লিমিটেড।
error: কপি/রাইট ক্লিক এর অনুমতি নাই !!!